আম্লীগ ও হিন্দু!

বাংলাদেশের ইতিহাসে ‘সংখ্যালঘু হিন্দু’দের সবচে বেশী ক্ষতি করেছে, করে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ।

কথাটা একটু জটিল হয়ে গেল!
ওকে, সহজ করে দিচ্ছি।

আওয়ামী লীগ নিজেই একটা ‘ধর্ম’।
তার প্রমাণ পাওয়া যায়, শেখ মুজিব তার নিজের লেখা ‘কারাগারের রোজনামচা’ গ্রন্থে যেখানে ইসলাম ধর্মের অনেক ‘প্রতিষ্ঠিত বিশ্বাস’ তিনি আজগুবি বলে হাসি-তামাশা করেছেন, অবজ্ঞা করেছেন।

আরও প্রমাণ পাওয়া যায় গেল বছর ফেসবুকে আওয়ামী লীগের অফিসিয়াল পেইজ থেকে শেখ মুজিবকে ‘প্রফেট অব বেঙ্গল’ ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

অর্থাৎ আওয়ামী লীগ নিজেই একটা ধর্ম এবং শেখ মুজিব তাদের নবী! (নাউজুবিল্লাহ)

অাওয়ামী লীগ যে মুসলিমদের প্রকাশ্য শত্রু সেটা নতুন করে আর প্রমাণ দেবার কিছু নেই- প্রতিদিন, প্রতিটি মুহুর্তে শুধুমাত্র ধর্মপ্রান মুসলিমরাই নয়- দেশের সাধারণ দাড়িওয়ালা বা টুপিওয়ালাই তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন।

মসজিদে বসে ধর্মীয় আলোচনা করাও বর্তমানে বলতে গেলে নিষিদ্ধ।
বাড়ীতে ধর্মীয় বই রাখাও অপরাধ- জংগী ট্যাগ লাগার সম্ভবনা। পরিণাম ক্রস-ফায়ার।

কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক সত্য হলো আওয়ামী লীগ যে হিন্দুদেরও প্রকাশ্য শত্রু- এই তথ্যটি দেশীয় হিন্দুরা বুঝতে অক্ষম।

প্রমাণ দিচ্ছি, আপনি যদি একজন হিন্দু হয়ে থাকেন- একটু চিন্তা করে বলুন তো, স্বাধীনতা যুদ্ধ বা যুদ্ধ পরবর্তী ভারতে চলে যাওয়া হিন্দুদের বাড়ী-ঘড়গুলি কারা দখল করেছে? একটু ভেবে বলুন এবং চিন্তা করে দেখুন- দখলকারী প্রায় সকলেই আওয়ামী লীগ নেতা।

দু’চারজন সুবিধাবাদী হিন্দু নেতা ছাড়া আওয়ামী লীগের আমলে হিন্দু জনগোষ্ঠী কি সত্যিই খুব ভাল রয়েছে? অাওয়ামী লীগ নেতারা ব্যক্তি স্বার্থ ছাড়া কিছুই করে না। যত হিন্দুদের বাড়ীতে বা মন্দিরে আগুন দেয়া হয়েছে সবই করেছে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা যার প্রমাণ পত্র-পত্রিকাগুলোতে সবসময়ই ফুটে উঠে।

দুঃখ লাগে- অন্ধ হিন্দুরা সেটা দেখে না, দেখতে পায় না। আওয়ামী লীগ তাদের নেশায় বুদ করে রেখেছে।

এবং শেষটায়, দেশের একমাত্র সংখ্যালঘু হিন্দু প্রধান বিচারপতি’কে এই আওয়ামী লীগ যেভাবে অপদস্ত করলো, অপমান করলো, বাড়ীতে গিয়ে বন্দুকের মুখে স্বাক্ষর করিয়ে নিলো এবং শেষ পর্যন্ত দেশ ছাড়া করতে বাধ্য করলো- এরপরও বলবেন আওয়ামী লীগ হিন্দুদের বন্ধু!

বলতে থাকুন।
মনে রাখবেন, আওয়ামী লীগ কারো বন্ধু হয় না- হিন্দুদের তো নয়ই।

দেশের হিন্দু সম্প্রদায় কি লক্ষ্য করে দেখেছেন যে- এই সুরেন্দ্র বাবু’র পক্ষে যারা কথা বলেছেন, লড়েছেন, পক্ষ নিয়ে ফেসবুকে কলম ধরেছেন তারা সকলেই কিন্তু মুসলিম সম্প্রদায়ভুক্ত- না কেউ আওয়ামী লীগ না।

বাংলাদেশের হিন্দুদের পক্ষে দেশের মুসলিমরা সবসময়ই ছিলো, আছে এবং থাকবেও; কিন্তু আওয়ামী লীগ স্বার্থ শেষে ছুড়ে ফেলবে ঠিক সুরেন্দ্র বাবুর মতো করেই।

এরপরও যদি আপনারা না বুঝেন- তাহলে আপনাদের চোখ-কান থেকে আর কি লাভ, বলুন তো?

en.pdf24.org    Send article as PDF